বেসরকারি চাকুরিজীবী রঞ্জু হাসান ঈদে পোষাক কেনার পাশাপাশি একটি স্মার্টফোন কিনতে চান। কিন্তু বাজেট ১০ হাজার টাকা। এই বাজেটে পছন্দমত সব ফিচার আছে এমন ফোন খুঁজে পাওয়া মুসকিল।

কিন্তু তার পক্ষে বাজেট বাড়ানো সম্ভব নয়। তাই এই বাজেটের মধ্যেই মোটামুটি ভালো ফোনটিই কিনতে চান তিনি।

শুধু রঞ্জু নন, ১০ হাজার টাকার মধ্যে ভালোমানের স্মার্টফোন কিনতে চান অনেকেই।প্রতিবদেনে বাজারে থাকা ১০ হাজার টাকার মধ্যের কিছু ফোনের তালিকা তুলে ধরা হলো।

নকিয়া ২

নকিয়া সব সময় ব্যবহারকারীদের কথা ভেবে ফোন আনে এমন কথা প্রচলিত। প্রতিষ্ঠানটির তেমনি একটি ডিভাইস হলো নকিয়া ২। ফোনটিতে রয়েছে ১.৩ গিগাহার্টজের কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ২১২ চিপসেটের প্রসেসর। ১ গিগাবাইট র‍্যামের পাশাপাশি রয়েছে ৮ গিগাবাইট ইন্টারনাল মেমোরি। ৫ ইঞ্চি এলসিডি ডিসপ্লের ফোনটির রেজুলেশন ১২৮০*৭২০ পিক্সেল। এতে রয়েছে কর্নিং গরিলা গ্লাস প্রযুক্তি।

ডিভাইসটির অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড ৭.১ নোগাট। ছবি তোলার জন্য পিছনে রয়েছে ফ্ল্যাশসহ ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। সামনে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। এছাড়া রয়েছে ৩.৫ এমএম হেডফোন জ্যাক, ব্লুটুথ, জিপিএস সুবিধা। সিঙ্গেল ও ডুয়েল সিমের দুইটি সংস্করণে পাওয়া যাচ্ছে ফোনটি।

দেশের বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৯ হাজার ৬০০ টাকায়।

শাওমি রেডমি ৫এ

শাওমির বাজেট ফোন  হিসেবে রেডিম ৫এ বেশ জনপ্রিয়। এতে রয়েছে ৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে, রেজুলেশন ৭২০*১২৮০ পিক্সেল। অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে রয়েছে অ্যান্ড্রয়েড ৭.১.২ নোগাট এর কাস্টমাইজ এমআইইউআই ৯.০।

কোয়ালকম এমএসএম৮৯১৭ স্ন্যাপড্রাগন ৪২৫ চিপসেটের পাশাপাশি গ্রাফিক্স সুবিধা দিতে মিলবে অ্যান্ড্রেন ৩০৮ জিপিইউ। ২ ও ৩ গিগাবাইট র‍্যামের ফোনটি যথাক্রমে ১৬ ও ৩২ গিগাবাইট ইন্টারনাল মেমোরি সংস্করণে পাওয়া যাবে। রয়েছে মাইক্রো এসডি কার্ড ব্যবহারের সুবিধা।

ছবি তোলার জন্য পিছনে রয়েছে ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা ও এলইডি ফ্ল্যাশ। সেলফি ও ভিডিও চ্যাটের জন্য সামনে রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ব্যাকআপ সুবিধা দিতে রয়েছে ৩ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি।

ফোনটি দেশের বাজারে অফিসিয়ালভাবে বিক্রি হচ্ছে ১০ হাজার ৯০০ টাকায়। তবে থার্ড পার্টি শপে বিক্রি হচ্ছে ৯ হাজার টাকায়। সে ক্ষেত্রে মিলবে না অফিসিয়াল ওয়ারেন্টি।

স্যামসাং গ্যালাক্সি জে২ ৪জি

ফোনটিতে রয়েছে ৪.৭ ইঞ্চি ডিসপ্লে। ফোনটি পিছনে রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা ও সামনে রয়েছে ২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ১.৩ গিগাহার্টজ কোয়াড কোর চিপসেট রয়েছে এতে। ডুয়েল সিম সুবিধার পাশাপাশি রয়েছে মাইক্রো ইউএসবি ২.০, ব্লুটুথ ও ওয়াইফাই সুবিধা। ১ গিগাবাইট র‍্যাম ও স্টোরেজ সুবিধা দিতে মিলবে ৮ গিগাবাইট ইন্টারনাল মেমোরি।

ফোনটি দেশের বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৯ হাজার ৯৯০ টাকায়।

এলজি কে৪

৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে সমৃদ্ধ ফোনটি রেজুলেশন হলো ৪৮০*৮৫৪ পিক্সেল। অ্যান্ড্রয়েড ৬.০ অপারেটিং সিস্টেমের ডিভাইসটিতে রয়েছে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ২১০ চিপসেট। ১ গিগাবাইট র‍্যামের পাশাপাশি মিলবে ৮ গিগাবাইট ইন্টারনাল মেমোরি। রয়েছে মাইক্রো এসডি কার্ড ব্যবহারের সুবিধা।

ছবি তোলার জন্য পিছনে রয়েছে ফ্ল্যাশসহ ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। পিছনে মিলবে এফ/২.৭ সমৃদ্ধি ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ২ হাজার ৫০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ফোনে থাকবে ওয়াইফাই, ব্লুটুথ জিপিএস ইত্যাদি সুবিধা।

দেশের বাজারে ফোনটি বিক্রি হচ্ছে ৮ হাজার ৯০০ টাকায়।

আসুস জেনফোন গো

আসুস জেনফোন গো’তে রয়েছে ৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে, রেজুলেশন ৮৫৪*৪৮০ পিক্সেল। ৬৪ বিট কোয়ালকম কোয়াড কোর স্ন্যাপড্রাগন ২০০ প্রসেসর রয়েছে এতে। ১ গিগাবাইট র‍্যামের পাশাপাশি মিলবে ৮ গিগাবাইট ইন্টারনাল মেমোরি। এতে ১২৮ গিগাবাইট মাইক্রোএসডি ব্যবহার করা যাবে।

পিছনে রয়েছে এফ/২.০ অ্যার্পাচারের ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা ও ফ্ল্যাশ। সেলফি ও ভিডিও চ্যাটের জন্য সামনে রয়েছে ২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা।

ডুয়েল সিম ব্যবহারের পাশাপাশি থাকবে ওয়াইফাই, ব্লুটুথ জিপিএস ইত্যাদি সুবিধা।

দেশের বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৭ হাজার ৯৯০ টাকায়।

সিম্ফোনি ইনোভা

অ্যান্ড্রয়েড ৭.০ নোগাট অপারেটিং সিস্টেম চালিত ফোনটিতে রয়েছে ৫ ইঞ্চি আইপিএস ডিসপ্লে। ছবি তোলার জন্য পিছনে রয়েছে ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। সেলফি ও ভিডিও চ্যাটের জন্য সামনে রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা।

রয়েছে ১.৩ গিগাহার্টজ ৬৪ বিট কোয়াড কোর প্রসেসর ও ২ গিগাবাইট র‍্যাম। ১৬ গিগাবাইট ইন্টারনাল মেমোরি পাশাপাশি ৬৪ গিগাবাইট মাইক্রো এসডি কার্ড ব্যবহারের সুবিধা রয়েছে।

ডিভাইসটির পুরুত্ব ১৪৩*৭১*৮.৩ এমএম, ব্যাকআপ সুবিধা দিতে রয়েছে ২ হাজার ৯০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি। ডুয়েল সিম সুবিধাযুক্ত ডিভাইসটির মূল্য ৮ হাজার ৩৯০ টাকা।

হুয়াওয়ে ওয়াই৫

৫.০ ইঞ্চি ডিসপ্লের হুয়াওয়ে ওয়াই৫ ফোনের রেজুলেশন ৭২০*১২৮০ পিক্সেল। মিডিয়াটেক এমটি৬৭৩৭টি চিপসেটের প্রসেসর রয়েছে এতে। গ্রাফিক্স সুবিধা দিতে আছে মালি-টি৭২০ এমপি২ জিপিইউ।

২ গিগাবাইট র‍্যাম ও ১৬ গিগাবাইট ইন্টারনাল মেমোরির ফোনটিতে রয়েছে মাইক্রো এসডি কার্ড ব্যবহারের সুবিধা। ছবি তোলার জন্য পিছনে রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। সমানে রয়েছে ফ্ল্যাশসহ ৫ মেগাপিক্সেল  ক্যামেরা।

ডুয়েল সিম, ব্লুটুথ, জিপিএস, ওয়াইফাই ইত্যাদি সুবিধা রয়েছে। ফোনটির মূল্য ৯ হাজার ৯৯০ টাকা।

টেকনো স্পার্ক

ফোনটিতে রয়েছে ৫.৫ ইঞ্চি এইচডি আইপিএস ডিসপ্লে। ২ গিগাবাইট র‍্যাম ও ১৬ জিবি ইন্টারনাল মেমোরির রয়েছে এতে। ব্যাকআপ সুবিধা দিতে রয়েছে ৩ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি। ছবি তোলার জন্য পিছনে রয়েছে ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। সামনে রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা।

ফোনটির অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড নোগাট ৭.০। ওয়াইফাই, ব্লুটুথ সুবিধার পাশাপাশি রয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সুবিধা। স্মার্টফোনটির দাম ৯ হাজার ৯৯০ টাকা ।

ওয়ালটন প্রিমো আরএইচ৩

দশ হাজার টাকার মধ্যে দেশীয় ব্র্যান্ড ওয়ালটনের বেশ কিছু স্মার্টফোন রয়েছে। এর মধ্যে চলতি বছরের শুরু দিকে বাজারে আসে ওয়ালটন প্রিমো আরএইচ৩। ফোনটিতে রয়েছে ৫.০ ইঞ্চি ডিসপ্লে, রেজুলেশন ১২৮০*৭২০ পিক্সেল। ১.২ গিগাহার্টজ কোয়াড কোর প্রসেসরের পাশাপাশি গ্রাফিক্স সুবিধা দিতে রয়েছে মালি ৪০০ জিপিইউ। ২ গিগাবাইট র‍্যাম ও ১৬ গিগাবাইট ইন্টারনাল মেমোরি আছে এতে। চাইলে ১২৮ গিগাবাইট পর্যন্ত মাইক্রো এসডি কার্ড ব্যবহার করা যাবে।

ছবি তোলার জন্য পিছনে ও সামনে রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ২ হাজার ৬০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি যুক্ত ডিভাইসটির মূল্যে ৯ হাজার ৯৯০ টাকা।

 

এই লেখাটি পূর্বে প্রকাশিত হয়েছে টেকশহর ডটকমে

বন্ধুদের জানিয়ে দেন

আপনার মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here