লাদাখের কাছে সীমান্ত নিয়ে চীন ও ভারতের মধ্যে বেশ কয়েকদিন থেকেই একটা উত্তেজনা বিরাজ করছে। সেই উত্তেজনার মধ্যেই এবার ভারতীয়রা নতুন এক পথে এগিয়ে যাচ্ছে। তারা চীনের ডেভেলপারদের তৈরি অ্যাপ মোবাইল থেকে ডিলিট করছে।

এই আন্দোলনের ডাকটা প্রথম দিয়েছিলেন সোনাম ওয়াংচুক। তিনি লাদাখের সেই বিখ্যাত প্রকৌশলী ও শিক্ষা সংস্কারক, যাকে নিয়ে তৈরি হয়েছিল বলিউডের বিখ্যাত ‘থ্রি ইডিয়টস’ ছবিতে আমির খানের রাঞ্চো চরিত্র। ইউনেসকো থেকে ম্যাগসাইসাই, দেশ-বিদেশের কত যে প্রতিষ্ঠান তাকে পুরস্কার দিয়ে সম্মানিত হয়েছে তার ইয়ত্তা নেই।

চার-পাঁচদিন আগে লাদাখে বসেই একটি ভিডিও ইউটিউবে আপলোড করেন এই ‘লিভিং লিজেন্ড’। জানান, তিনি নিজের বহুদিনের সঙ্গী চীনা মোবাইল ফোনটি ত্যাগ করছেন। শুধু তাই নয়, এক বছরের মধ্যে ‘মেইড ইন চায়না’ সব জিনিসপত্রই তিনি বর্জন করবেন। প্রত্যেক ভারতীয়কেই একই কাজ করার আহ্বানও জানান তিনি।

এই ডিলিটের কাজটি করতে তারা বেছে নেয় ‘রিমুভ চায়না অ্যাপস’। ভারতীয় কোম্পানি ওয়ান টাচ অ্যাপল্যাব এর নির্মাতা। অ্যাপটি পুরো ফোন স্ক্যান করে চাইনিজ অ্যাপের লিস্ট তৈরি করে। ফলে ব্যবহারকারীরা খুব সহজেই একবারে সব চাইনিজ অ্যাপ ডিলিট করতে পারেন।

তবে কোনো অ্যাপ দিয়ে অন্যান্য থার্ড পার্টি অ্যাপ ডিলিট করতে ব্যবহারকারীদের উৎসাহিত করা গুগলের নীতিমালা বিরোধী। তাই গুগল প্লে থেকে অ্যাপটি সরিয়ে নিয়েছে গুগল। অ্যাপটির রেটিং ছিলো ৪.৯।

গত ১৭ মে চালু হওয়া অ্যাপটি এ পর্যন্ত ডাউনলোড হয়েছে ৫০ লাখের বেশি। সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টের মাধ্যমে খুব দ্রুত এটি ভাইরাল হয়।

অ্যাপটি দিয়ে চীনের তৈরি টিকটক ও জুম অ্যাপ সহজেই ডিলিট করা যাচ্ছে। তবে চাইনিজ ফোনে প্রিইনস্টলড অ্যাপগুলো সরানো যাচ্ছে না।

চলতি মাসের শুরুতে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম জানায়, তাদের নিয়ন্ত্রিত লাদাখ অঞ্চলে চীনা আর্মি বাহিনী ভারি অস্ত্র নিয়ে প্রবেশ করেছে। সেখানে তাঁবু খাটিয়ে কয়েকদিন অবস্থানও করেছে।

এ ঘটনায় প্রকৌশলী সোনাম ওয়াংচুক ইউটিউবে চীনা পণ্য বর্জনের আহবান জানান। ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার পর থেকে #boycottChina, #boycottmadeinChina ও #boycottChineseapps পোস্টে সয়লাব হয়ে যায় ভারতীয়দের সোশ্যাল মিডিয়া।

বন্ধুদের জানিয়ে দেন

আপনার মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here