বর্তমান বিশ্ব প্রযুক্তিগত ভাবে বহু এগিয়ে গিয়েছে। “ডিজিটাল বাংলাদেশ” গড়ে তোলার লক্ষ্যে বাংলাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতেও এসেছে ডিজিটালের ছোঁয়া। ক্লাস রুম থেকে শুরু করে কপোরেট চাকরির ক্ষেত্রে প্রজেক্ট বা রিপোট উপস্থাপনের প্রয়োজন হয়। এই কাজটি করতে বহুল ব্যবহৃত সফটওয়্যার হলো মাইক্রোসফট পাওয়ার পয়েন্ট।

পাওয়ার পয়েন্ট সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পর্ব ১ দেখতে পারেন। এটি দ্বিতীয় পর্ব। এই পর্বে আমরা দেখবে রিবনের ব্যবহার সম্পর্কে। সফটওয়্যার হিসেবে আমরা ব্যবহার করব মাইক্রোসট পাওয়ার পয়েন্ট ২০১৩ সংস্করণ। অন্য সংস্করণগুলোর ব্যবহার একই রকম। একটি সংস্করণ সম্পর্কে জানলে সবগুলো সংস্করণেই কাজ করতে পারবেন।

মাইক্রোসফট পাওয়ার পয়েন্টে প্রেজেন্টেশন তৈরি করার আগে আমাদের উইন্ডো এবং কমান্ড সম্পর্কে ভালো করে জেনে নেয়া উচিত। পাওয়ার পয়েন্ট ওপেন করলেই উপরে কিছু কিমেনু অপশন আসে। যাকে রিবন বলা হয়। এটি এপ্লিকেশনের সবার উপরে থাকে। মাইক্রোসফটের অন্যান্য যে সকল সফটওয়ার রয়েছে, যেমন- মাইক্রোসফ্ট ওয়ার্ড, এক্সেল কিংবা পাওয়ার পয়েন্ট প্রতিটিতে রিবন রয়েছে।  

powerpoint-techcultরিবনের প্রতিটি অপশনের ব্যবহার ভিন্ন। রিবনের এক ট্যাব থেকে আরেক ট্যাবে গেলে দেখা যাবে নতুন নতুন কমান্ড এবং তাদের রয়েছে ভিন্ন ব্যবহার। প্রতিটি টুলসের ব্যবহার জানা থাকলে প্রেজেন্টেশন তৈরি আরও সুন্দর ও সহজ হয়ে যাবে। আসুন আমরা এক এক করে প্রতিটির ব্যবহার জেনে নেই। 

File

powerpoint

রিবনের বামে ফাইল বাটনে ক্লিক করলে প্রয়োজনীয় কিছু অপশন্‌স চলে আসে। যার প্রতিটিই খুবই জরুরি কাজে লেগে থাকে। যেমন- নতুন ডকুমেন্ট তৈরি করা(New), প্রেজেন্টেশন সংরক্ষন করা (Save), প্রেজেন্টেশনের নাম পরিবর্তন করে অন্য নামে সংরক্ষন করা (Rename), প্রেজেন্টেশন প্রিন্ট করা (Print) ইত্যাদি। এসকল কমান্ডগুলার সাহায্যে আমরা নতুন ডকুমেন্ট তৈরি করতে পারি New কমান্ডে ক্লিক করবার মাধ্যমে।  ক্লিক করার সাথে সাথে নতুন একটি ডকুমেন্ট চলে আসবে। 

Save কমান্ডে ক্লিক করে আমরা প্রেজেন্টেশন সংরক্ষন করতে পারি।  এছাড়াও আমরা কীবোর্ডের Ctrl+S প্রেস করেও ডকুমেন্ট সংরক্ষন করতে পারি। 

Rename কমান্ডে ক্লিক করে নাম পরিবর্তন করে প্রেজেন্টেশনকে অন্য নামে সংরক্ষন করতে পারি। এর ফলে আপনি যেকোনো সময় যেকোনো নামে প্রেজেন্টেশন সেইভ করতে পারবেন। 

এছাড়াও প্রেজেন্টেশনটি প্রিন্ট করতে চাইলে প্রিন্টারের সাথে সংযুক্ত করে Print কমান্ডে ক্লিক করলেই আপনার ডকুমেন্ট প্রিন্ট হয়ে যাবে।

রিবনের বাকি বিষয়গুলো পর্ব ৩ এ তুলে ধরা হবে।

বন্ধুদের জানিয়ে দেন

আপনার মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here